প্রভাত সঙ্গীত

১-৫০১৮

১৫০১-২০০০


২০০১-২৫০০


২৫০১-৩০০০


৩০০১-৩৫০০


৩৫০১-৪০০০


৪০০১-৪৫০০


৪৫০১-৫০১৮

১-৫০০

১ বন্ধু হে নিয়ে চলো


২ এ গান আমার আলোর ঝর্ণাধারা


৩ আঁধার শেষে আলোর দেশে


৪ সকল মনের বীণা এক সুরে বাজে আজ


৫ এলো অনেক যুগের সেই অজানা পথিক


৬ বন্ধু আমার


৭ নীরবতা মাঝে কে গো তুমি এলে


৮ আমি যেতে চাই তুমি নিয়ে যাও


৯ আঁধারের সেই হতাশা


১০ মায়ামুকুরে কে কী ভাবে কী করে


১১ নাচের তালে এগিয়ে চলে


১২ নয়নে মমতা ভরা


১৩ আমি শুধু হেসেছি নেচেছি গেয়েছি


১৪ আজ মনে পড়ে হারানো দিনেতে


১৫ যেওনা যেওনা ওগো বন্ধু


১৬ (আজি) সজল পবনে


১৭ কেটে গেছে মেঘ গেছে উদ্বেগ


১৮ কে যেন আসিয়া কয়ে' গেছে কাণে


১৯ নবীন প্রাতে এই অরুণ আলোতে


২০ দূর আকাশের তারা ওগো


২১ তুমি আলোঝলমল পূর্ণিমাদীপ


২২ ওগো বন্ধু বলিতে পারো


২৩ নূতনের আলোক ওগো


২৪ (বন্ধু হে) হঠাত এলে হঠাত গেলে


২৫ দুনিয়াবালোঁ তাক্‌তে রহো


২৬ বন্ধু গাও গাও গাও মধুগীতি


২৭ দাও সাড়া ওগো প্রভু ছন্দে গানে


২৮ বন্ধু তোমায় কী বলিবো


২৯ আমায় ছোট্ট একটি মন দিয়েছো


৩০ তুমি মর্মে এসে আমার ঘুম ভাঙ্গালে


৩১ কোন তিমিরের পার হতে ফুটে উঠেছো


৩২ উচাটন মন না মানে বারণ


৩৩ তোমার নামে তোমার গানে


৩৪ তোমার নয়নতলে সব কিছু নেচে' চলে


৩৫ আকাশ বাতাস সুধানির্যাস


৩৬ সবার বন্ধু সবার আপন


৩৭ (কোন্‌) ভুলে'-যাওয়া ভোরে সহাস সমীরে


৩৮ সে যে এসেছে মোর হৃদয়ে গুঞ্জরিয়া


৩৯ তুমি আসিয়াছো শত জনপদ বাহিয়া


৪০ চম্পক বনে দখিনা পবনে


৪১ আঁধার পেরিয়ে আপনি এসেছো


৪২ তোমারে পেয়েছি


৪৩ তোমরা যা' খুশি তাই বলো


৪৪ আর কোনো কথা আমি মানি না


৪৫ বকুল গন্ধে মধুরানন্দে


৪৬ (এরা) কান্নায় ভাঙ্গা রুধিরেতে রাঙা


৪৭ কুঞ্জবনেতে গুঞ্জরণেতে


৪৮ আলো ঝরে' পড়ে ঝলকে ঝলকে


৪৯ ডাক দিয়ে যাই যাই যাই (আমি)


৫০ রক্তিম কিশলয় (আমি)


৫১ (মোর) মধুকার বনে স্পন্দন এনে


৫২ তুমি উজ্জ্বল ধ্রুবতারা


৫৩ ওগো প্রভু তোমাকে আমি


৫৪ আমি ঋজুপথে চলে' চলি ভাই


৫৫ সুরসপ্তকে মাধুরী ভরি


৫৬ কে গো তুমি পথপাশে দাঁড়িয়ে একা


৫৭ ছন্দ আমার নৃত্যের তালে তালে চলে


৫৮ দু'জনে যখন মিলিছে তখন


৫৯ ননীর পুতুল টুটুল টুটুল


৬০ তোমার জিনিস তোমাকে দিয়েছি


৬১ (আমি) পরাণ ধরিয়া দিই তোমারই চরণে


৬২ নয়নে এসেছিলে স্বপনে


৬৩ দীপাবলী সাজায়েছি প্রভু


৬৪ আকাশে আজ রঙের মেলা


৬৫ কাছে এলে বলে' গেলে না


৬৬ রুম্‌ঝুম্‌ রুম্‌ঝুম্‌ নূপুর বাজায়ে


৬৭ তারই পথ পানে মন ছুটে' যায়


৬৮ I love this tiny green island


৬৯ কে এলে না বলে এলে


৭০ যাবো না আমি যাবো না যাবো না রে


৭১ জগৎটা নয় মিথ্যে মায়া


৭২ মৌমাছি গুনগুনিয়ে


৭৩ ওগো প্রিয ওগো প্রিয়


৭৪ চল্‌ চল্‌ চল্‌ চল্‌ গান গেয়ে' চল্


৭৫ কে এলে আজি কে এলে


৭৬ স্বপনে খোঁজ পেয়েছিনু


৭৭ স্বপনে তা'রে চিনেছি


৭৮ স্বপনে সে এসেছিলো


৭৯ স্বপনের ছোঁয়া লেগে' (তব)


৮০ স্বপনে এসেছো আনন্দঘন তুমি


৮১ স্বপনের ঘোরে দিন চলে' যায়


৮২ তুমি এসেছো প্রাণে এসেছো


৮৩ চির নূতনের আহ্বানে


৮৪ সুমুখে আসিয়া দাঁড়াইয়া ছিলে


৮৫ দিনগুলি চলে' যায়


৮৬ মেঘের মাঝে আগুন জ্বেলে'


৮৭ কত জনমের প্রতীক্ষা পরে


৮৮ হেমন্তে শিরশিরে হাওয়াতে


৮৯ কিছু ফুল চায় হাত বাড়াতে


৯০ হেমন্তে মোর ফুলের সাজি ভরবে গো


৯১ শেষ হেমন্তে হিমেল হাওয়ায়


৯২ হেমন্ত আজি প্রাতে এসেছে


৯৩ হেমন্তেরই ধানের গন্ধে


৯৪ শীতের কাঁপুনি নিয়ে এলে


৯৫ চন্দনবীথি কুয়াসায় ঢাকি'


৯৬ শিশিরসিক্ত খর্জুরবীথি


৯৭ শীতে শিউলি কেন ফোটে না


৯৮ শীত আসিয়াছে সাথে আনিয়াছে


৯৯ ভাবি নিকো আসবে তুমি শীতের রাতে


১০০ কমলানেবুর বর্ণে গন্ধে


১০১ শীতের শেষেতে নব পাতা আসে


১০২ অশোকে পলাশে নব উল্লাসে


১০৩ বসন্ত আজ জাগলো


১০৪ নৃত্যের তালে তালে নৃত্যের ছন্দে


১০৫ (আজি) বসন্ত পবনে লীলায়িত চরণে


১০৬ ফুলের সাজি সাথে নিয়ে


১০৭ বসন্ত আজ হাসলো


১০৮ রৌদ্রের খর তাপে


১০৯ বন্ধু তোমার গোপন কথা


১১০ গ্রীষ্মাবকাশে সে যদি আসে


১১১ বেণুকার বন কী কথা কয় (আজি)


১১২ ঈশান কোণেতে মেঘ জমিয়াছে


১১৩ বিশাখাতনয় বৈশাখ তুমি


১১৪ কেকা-কলরব মুখরিত প্রাতে


১১৫ বরষার রাতে তুমি এসেছিলে


১১৬ বরষা এসেছে নীপনিকুঞ্জে


১১৭ বরষার দিনে সবাকার সনে


১১৮ বরষা এসেছে ভরসা এসেছে


১১৯ মেঘ তুমি কাছে এসো


১২০ শারদপ্রাতে মোর একতারাতে


১২১ (আমি) শরৎ সকালে শিশিরেতে ধুয়ে'


১২২ পথিক তুমি একাকী এসে'


১২৩ (শরৎ) ওই আসে ওই আসে ওই আসে


১২৪ শরৎ তোমার সুরের মায়ায়


১২৫ আজ আকাশে তারার মেলা


১২৬ এক পরিক্রমার হলো অন্ত


১২৭ এক নূতনের সুর আজি বাজলো বাজলো


১২৮ বৎসর নব বৎসর তুমি


১২৯ সুরের ধারা এগিয়ে চলে


১৩০ সোনালী ভোর জীবনে মোর


১৩১ নব বর্ষ এলো আজি


১৩২ জন্মতিথিতে নূতনের স্রোতে


১৩৩ তব শুভ জন্মদিনে


১৩৪ জনম লগনে (তব)


১৩৫ জন্মদিনে এই শুভ ক্ষণে


১৩৬ আজকের এই শিশুতরু


১৩৭ বেশী কিছু নাহি চাই (মোরা)


১৩৮ আমি যেদিকে তাকাই হেরি ও রূপ কেবল


১৩৯ তুমি এসেছিলে নীরব নিশীথে


১৪০ আছো কবরীবেণীতে কালো ডোর হয়ে


১৪১ সে যে আকাশে সাগরে বনে কান্তারে


১৪২ আকাশে সাগরে


১৪৩ আহা কী শুণিলাম


১৪৪ এসো ধীরে ধীরে চরণ ফেলে'


১৪৫ দূর নীলাকাশে দখিনা বাতাসে


১৪৬ অযুত ছন্দে এসেছিলে তুমি


১৪৭ আলো ঝলমল মধুর নিশীথে


১৪৮ আলোর পারে আলোরই ঢেউ


১৪৯ মধুর স্বপনে মনেরই গহনে


১৫০ বল দাও মোরে বল দাও


১৫১ এসেছিলে তুমি প্রভু


১৫২ চম্পক-বনে মধুর স্বপনে


১৫৩ আলোর পারেতে আলো তারপরে আরো আলো


১৫৪ এসো এসো (প্রভু)


১৫৫ কেন অমন করিয়া ডাকিতেছো আমায়


১৫৬ এগিয়ে চলো এগিয়ে চলো


১৫৭ না চিনিয়াই যাহাকে ডেকেছি


১৫৮ তুমি সবার মনে আছো


১৫৯ তোমায় ভালবাসি


১৬০ তোমাকে পেয়েছি প্রভু স্মরণে মননে


১৬১ গানের সুরে (তব)


১৬২ কিছু কয়ে যাও কিছু শুণে' যাও


১৬৩ মনকে কোন ছোট কাজেই নাবতে দোব না


১৬৪ কে নিবি আয় আয় ছুটে' আয়


১৬৫ পায়ে চলার পথের কথা


১৬৬ আলোকের ঢেউ আঁধার ভেদিয়া


১৬৭ বিশ্বত্রাতার চরণের রেণু


১৬৮ (আজ) অরুণে রাঙানো সব আশা


১৬৯ এসেছিলে প্রভু ঘুম ভাঙ্গাতে


১৭০ সবার আপন তুমি সবার আপন


১৭১ মনমঞ্জুষা মোর সতত জাগিয়া আছে


১৭২ তব কৃপা বিনা আমার তরণী


১৭৩ দ্যুলোকে ভূলোকে তারই পদধ্বনি


১৭৪ আমার মনেতে তুমি সবার মনেতে তুমি


১৭৫ তোমার গোপন কথা


১৭৬ জীবনটা নয় থেমে' থাকা ভাই


১৭৭ তব পথ চেয়ে' আছি


১৭৮ তোমারই দেওয়া মনে


১৭৯ ধরা দিলে তুমি প্রভু


১৮০ সুপ্ত হৃদয় জাগিয়া উঠেছে


১৮১ তুমি নিকট হইতে আরও নিকটেতে


১৮২ সবার চিত্ত আজ একই সুরে উদ্গীত


১৮৩ গানের জগৎ কাছে পেয়েছি


১৮৪ রুনু ঝুনু ঝুনু রবে প্রাণভরা সৌরভে


১৮৫ দিনের আলোয় গানের তরী


১৮৬ এসো আমার মনে বসো আমার মনে


১৮৭ তোমাকে চেয়েছি চেয়েছি সব কাজে


১৮৮ (তুমি) নিজে এলে ধরা দিলে


১৮৯ দুঃখের সাথী তুমি সুখের বন্ধু তুমি


১৯০ চম্পক বনে হারায়ে ফেলেছি


১৯১ তুমি পুষ্পেতে মধু এনেছো


১৯২ মানস-মন্দিরে এসো প্রভু কৃপা করে'


১৯৩ আঁধার সাগরে পথ হারিয়ে


১৯৪ তোমাকে ভুলিয়া


১৯৫ এসো মোর প্রাণে এসো মোর মনে


১৯৬ আমারে কে নেবে ভাই


১৯৭ সাথী আমার বন্ধু আমার


১৯৮ আমার এ মনোবীণা ছন্দহীনা


১৯৯ হিয়ার মাঝারে নীরব প্রহরে


২০০ তুমি এসেছো মন যে কেড়েছো


২০১ চৈতি হাওয়ার মন যারে চায়


২০২ প্রথম জীবনের হারানো সুরের


২০৩ এসো গো বন্ধু মম ক্ষুদ্র এ হৃদয়ে


২০৪ এসো গো কাছে এসো ধরার ধূলি রূপে ভরে দাও


২০৫ এসো গো সখা তোমারই আশে


২০৬ মনের আঁখি সতত রাখি


২০৭ তার মন যদি চায় সব কিছু হয়


২০৮ আসিবে বলিয়া গিয়াছে চলিয়া


২০৯ তোমার এ অসীম অপার ভালবাসার


২১০ দিন গুণে আর কাল গুণে গুণে


২১১ দিন আসে আর দিন চলে যায়


২১২ নীরব রাতে তোমারই সাথে


২১৩ এসো এসো বন্ধু এসো


২১৪ আঁখিতে ছিলো জল মমতা ছলছল


২১৫ তব আসা-পথে কান পেতে পেতে


২১৬ তুমি এসেছিলে ধরা দিয়েছিলে


২১৭ তোমারে চেয়েছি পরাণ দিয়েছি


২১৮ পিতা মাতা বন্ধু সখা


২১৯ (কোন্) ভুলে-যাওয়া ভোরে


২২০ কৃষ্ণমুরারি বাঁশরী তোমারই


২২১ তোমায় কত ভালোবাসি


২২২ তুমি এসেছো তুমি এসেছো


২২৩ ছন্দে ছন্দে তোমারই লীলা


২২৪ বন্ধু মম প্রাণের প্রিয়তম


২২৫ সাথে সাথে থেকো চরণে ধরে রেখো


২২৬ সকলের আঁখি ছলছল


২২৭ শোনো গো শোনো গো শোনো গো ধরাবাসী


২২৮ কংসদমনে শিষ্টপালনে


২২৯ কৃষ্ণ-দরশনে ব্যাকুল পরাণে


২৩০ নারদ শোন কথা আমার এই ব্যথা


২৩১ আঁধার নিশায় আমারই হিয়ায়


২৩২ কাছে ও দূরে না-জানা সুরে


২৩৩ এসেছো এসেছো প্রভু এসেছো


২৩৪ তব দরশন আশে রয়েছি পথের পাশে


২৩৫ ভ্রমর কাছে এসে আমার চারিপাশে


২৩৬ ঘুমঘোরে দেখেছি গো


২৩৭ এসো এসো তুমি এসো এসো


২৩৮ আমার কথা এত দিনে


২৩৯ এসেছো তুমি এসেছো


২৪০ তোমার আলোতে ঝলমল করি


২৪১ তুমি আমার কত আপন


২৪২ যাদের মোহেতে তোমারে ভুলেছি


২৪৩ নূপুর ধ্বনি আবার বাজিল আবার বাজিল


২৪৪ তোমার এ আগমনে ভূতলে গগনে


২৪৫ গানের সুরেতে তোমারে পেয়েছি


২৪৬ ভরা বাদলে তুমি এসেছিলে


২৪৭ ভরা বাদলে তুমি এসেছিলে


২৪৮ আজকে প্রভু তোমার সাথে


২৪৯ তোমারই আসা পথ


২৫০ কেন ধরায় এসেছি


২৫১ আজি মোর আঁখিতে বান


২৫২ কে গো গেয়ে যায় সুরের মায়ায়


২৫৩ (আমার) মনের মুকুরে


২৫৪ মন ভেসে যায় সজল হাওয়ায়


২৫৫ আমি তোমার লাগিয়া জাগিয়া রয়েছি


২৫৬ বর্ষামুখর রাতে নৃত্যের সাথে সাথে


২৫৭ আসন পাতা আছে আজ


২৫৮ অরুণ তোমার ভোরের আলোয়


২৫৯ ফাল্গুনের আগুন-লাগা


২৬০ বন্ধু আমার বলিতে পার


২৬১ তোমার আসা তোমার যাওয়া


২৬২ একেলা পথ চলি কিছুতে নাহি টলি


২৬৩ তব আগমনে তব নামে গানে


২৬৪ গহন রাতে মনোবীণাতে


২৬৫ আকাশে ছিলো যে মেঘ


২৬৬ তোমায় আমায় প্রথম দেখা


২৬৭ তোমারই আশে রয়েছি বসে


২৬৮ বন্ধু তোমার কঠোরতায়


২৬৯ তোমারই নামেতে তোমারই গানেতে


২৭০ তোমার কথা আমি


২৭১ (প্রভু) তোমারই লীলা তুমি বোঝাও


২৭২ তুমি কত না লীলাই জানো


২৭৩ আঁধার নিশীথে তুমি এসেছিলে


২৭৪ তোমার আসা-যাওয়া হয় না কভু প্রভু


২৭৫ বন্ধু আমার এসো গো প্রাণে


২৭৬ (সে যে) জ্যোতির ছটায় ভাসিয়ে দিলো


২৭৭ (শুধু) তোমাকেই আমি ভালবাসিয়াছি


২৭৮ তোমাকে সঁপেছি গো পরাণ


২৭৯ তোমায় কী নামে ডাকিবো গো


২৮০ (প্রভু) এসো তুমি রূপের ছটায়


২৮১ বিশ্বাতীত বিশ্বগ তুমি


২৮২ (তুমি) মনেতে লুকিয়ে থেকে


২৮৩ এলাম এসে কাজ করিলাম


২৮৪ এসো ফিরে আবার ফিরে


২৮৫ (তুমি) মনের কমল মনে ফুটে থাকো


২৮৬ তারে গো পেয়েছি


২৮৭ চাঁদ ওই আকাশে ভালবাসা বাতাসে


২৮৮ কত কাল পরে পেয়েছি তোমারে


২৮৯ আমার জীবনে তুমি এসেছিলে


২৯০ তব চেতনায় সবাই জেগেছে


২৯১ অজানা অতিথি জানিতে নারিনু


২৯২ কাল রাত্রিতে ঝড় বয়ে গেছে


২৯৩ তোমাকেই আমি ভালোবাসিয়াছি


২৯৪ তুমি এসেছিলে মনের কমলে


২৯৫ এসো এসো বন্ধু মম


২৯৬(প্রভু) তোমার পরশ


২৯৭ তোমারই লীলার মাঝে অযুত রূপে সাজে


২৯৮ এসেছিলে প্রভু মেঘ গর্জনে


২৯৯ তোমাকেই ভালবাসিয়াছি


৩০০ আলোরই দেশেতে জেগেছি আমি গো


৩০১ আসবে বলে গেছ যে চলে


৩০২ দমকা হাওয়ায় ডাক দিয়ে যায়


৩০৩ রাজার কুমার পক্ষীরাজে


৩০৪ তোমাকেই আমি ভালবাসিয়াছি


৩০৫ এসো তুমি আজি প্রাতে


৩০৬ সুন্দর মধুপ্রভাতে


৩০৭ সবাকার অতি প্রিয় আদরণীয়


৩০৮ নীল অঞ্জন আঁখিতে আঁকিয়া


৩০৯ সুমুখে আসিয়া দাঁড়াও প্রভু তুমি


৩১০ মুখেতে হাসি বলে ভালবাসি


৩১১ তুমি কত লীলা জানো


৩১২ এসো গো এসো গো মোর মনেতে


৩১৩ আমার জীবনে আমার পরাণে


৩১৪ তোমার পরশ ছড়ায়ে রেখেছো


৩১৫ কোন অলকার দোলা এসে লাগলো


৩১৬ তুমি এলে চারিদিক রঙে ভরে উঠলো


৩১৭ রুনুঝুনু রুনুঝুনু নূপুর বাজে


৩১৮ রঙীন স্বপন মনের মতন


৩১৯ দূর নীলিমায় হাতছানি দেয়


৩২০ নন্দনবন মন্থন করি


৩২১ সবার মাঝে হারিয়ে গেছো


৩২২ তুমি এসেছিলে বরষার রাতে


৩২৩ ভালবাসিয়াছি তোমারে


৩২৪ মোদের ধরা রূপ পেয়েছে


৩২৫ সকল মনেতে স্থান করিয়াছো


৩২৬ (তুমি) নিত্যশুদ্ধ পরমারাধ্য


৩২৭ সৌম্য শান্ত চেতনানন্


৩২৮ তোমার মাধুর হাসি নিয়ে এসেছে


৩২৯ আজিকে ডাকলে মোরে দূরের সুরে


৩৩০ আমার হিয়ায় ভুল করে হায়


৩৩১ তোমারই ভুবনে তোমারই ভবনে


৩৩২ ফুলের মালাটি


৩৩৩ আমার হিয়ায় ব্যাকুলতা


৩৩৪ লভই যদি পুনঃ মানব জনম


৩৩৫ তুমি কোন দেশেতে যাও রে বন্ধু


৩৩৬ তোমারই হাসিতে তোমারই বাঁশীতে


৩৩৭ আলোকের পথ ছাড়িবো না (আমি)


৩৩৮ রঙবেরঙে সবারে সাজায়েছো


৩৩৯ উদাসী হিয়াতে কাজলা রাতে


৩৪০ বৃথা জন্ম গমায়লুঁ


৩৪১ দয়াল প্রভু বলো গো তোমায়


৩৪২ সুমুখের পানে চলে যাবো আমি


৩৪৩ তোমারই লীলায় ভরা এ ভুবন


৩৪৪ তোমায় ধরে রাখবো প্রভু


৩৪৫ তোমার লাগি কত ব্যথা


৩৪৬ প্রভু তুমি এলেই যখন


৩৪৭ আঁধার নিশায় দীপশিখা তুমি


৩৪৮ কেউ তোমার লাগিয়া জাগে দিবা রাতি


৩৪৯ ওগো প্রভু চেয়ে দেখো


৩৫০ তুমি বিনা কে বা কৃপা করিতে পারে


৩৫১ কেন গো এভাবে এলে


৩৫২ চির নূতনকে কাছে পেয়েছি


৩৫৩ নূতন প্রভাতে তুমি এলে এলে


৩৫৪ প্রভু তোমার লীলার ছলে


৩৫৫ ওগো আমার আদরের মাটি


৩৫৬ ঝরা কুসুমের ব্যথা বোঝো না


৩৫৭ ভালোবাসো শুধুই মুখে


৩৫৮ দখিনা বাতাসে মলয় সুবাসে


৩৫৯ যাহা কিছু চাও তাহা করে যাও


৩৬০ বরষার রাতে নীরবে নিভৃতে


৩৬১ রাতের বেলায় সবাই ঘুমায়


৩৬২ নূতন প্রভাতে অরুণ আলোতে


৩৬৩ কালের হাওয়ায় ফুল ঝরে যায়


৩৬৪ (আজি) পাখীরা কী গান গাইয়া যায়


৩৬৫ অরূপ দেবতা রূপের দেউলে


৩৬৬ স্তব্ধ মানবতা জাগলো গো জাগলো


৩৬৭ শরৎ সাঁঝেতে তুমি এলে


৩৬৮ ডালা উজাড় করে ফেলো ফেলো


৩৬৯ এলো যে আঁখিতে বান ও পাষাণ


৩৭০ পথিক এসেছে আজি


৩৭১ অশ্রুতে মাখা মনমাঝে রাখা


৩৭২ তোমা লাগি কত মোর মনে ব্যথা


৩৭৩ জীবনকে দোলা দিয়ে কে গো তুমি আজ এলে


৩৭৪ তোমার কাছে চাইনা কিছু


৩৭৫ রঙীন মেঘে হাতছানি দেয়


৩৭৬ সোণার কমল আলোঝলমল


৩৭৭ মর্ম মথিয়া হিয়া নিঙাড়িয়া


৩৭৮ আশা আশা করে


৩৭৯ প্রথম জীবনে তুমি আসো নিকো


৩৮০ তুমি আমার সোণারই কমল


৩৮১ (তুমি) এসেছো না বলে


৩৮২ এসো কাছে এসো কাছে


৩৮৩ আজকে তোমার সঙ্গে সবার


৩৮৪ পাওয়া না-পাওয়ায় সুখে দুঃখে হায়


৩৮৫ তোমারই সুরেতে তব করুণাতে


৩৮৬ এতদিন পরে বঁধুয়া এসেছে


৩৮৭ (প্রভু) ধরা কি কভু দেবে না


৩৮৮ আলোকেরই বান নাবিয়ে


৩৮৯ ফুলের বনেতে ভ্রমরা এসেছে


৩৯০ (প্রভু তোমার) কৃপার কণা হলেই হবে


৩৯১ চোখের জলে ভিজিয়া গিয়াছে


৩৯২ মনের ময়ূর মেলেছে যে পাখা


৩৯৩ কমল কুসুম সম কোমল তুমি গো


৩৯৪ দখিণা বাতাসে কুসুমসুবাসে


৩৯৫ নীলসায়রে সোণার কমল


৩৯৬ রঙীন পরী আজ চলেছে কোথায়


৩৯৭ দর্পহারী প্রভু দর্প না সহে কভু


৩৯৮ নিদ্রা তন্দ্রা ক্রোধ আলস্


৩৯৯ সাধুতা সরলতা তেজস্বিতা গুণে


৪০০ (সেই) স্বপ্নের দেশে সে নীলসায়রে


৪০১ নাচের তালে ছন্দে গানে


৪০২ আলোর ওই ঝরনাধারায়


৪০৩ ফাগুন মাসেতে ফাগ নিয়ে খেলি


৪০৪ ফুলের বনেতে পরী এসেছিলো


৪০৫ আমি জেগে আছি দিবা রাতি


৪০৬ (আয়) ঋতুর রাজা বসন্


৪০৭ মনের মাঝারে লুকায়ে রয়েছো


৪০৮ তোমারে পেয়েছি জীবনেরই প্রাতে


৪০৯ গান গেয়ে যাই তোমারে তুষিতে


৪১০ ওগো সামনে চলা পথিক


৪১১ আমার মনেতে তুমি এসেছিলে


৪১২ কে গো তুমি এলে


৪১৩ হারানো দিনের সুর ভেসে আসে


৪১৪ করুণা করে গো কৃপা করো সবে


৪১৫ (প্রভু) কী আর বলিবো আমি


৪১৬ প্রভু তব আসারই আশে দিন চলে যায়


৪১৭ আলোর দেবতা এলো


৪১৮ চাঁদেরই সাথে মধুনিশাতে


৪১৯ কেঁদে কেঁদে কত ডাকি


৪২০ হৃদয় উছলিয়া উপচিয়া পড়ে গো


৪২১ আগুন জ্বালাতে আসি নিকো আমি


৪২২ কৃপা করো প্রভু কৃপা করো (তুমি)


৪২৩ ঝরিয়া গিয়াছে ফুলের পাপড়ি


৪২৪ গোপনে গোপনে এসো গো নয়নে


৪২৫ তোমার এ কি ভালবাসার রীতি


৪২৬ অলকার প্রভু নামিয়া এসেছে


৪২৭ হারিয়ে যাওয়া নিধি আবার এসেছে


৪২৮ তুমি আলো-ছায়া খেলা খেলিতে জানো


৪২৯ সবার হইতে তুমি আপনার


৪৩০ তুমি কোথায় চলে যাও


৪৩১ (প্রভু তুমি) হৃদয়কমলে এসো মোর


৪৩২ রূপকথার এক রাজা ছিলো


৪৩৩ এমন দিনে তুমি কোথায়


৪৩৪ (কোন) সুদূরের গানে কে এসেছো তুমি


৪৩৫ অগতির গতি সবার প্রণতি


৪৩৬ (মোরে) কী কথা বলো গো তুমি


৪৩৭ তোমারই মননে তোমারই শ্রবণে


৪৩৮ পরাণ ভরে বরণ করি


৪৩৯ আজি বসন্ত এলো জীবনে


৪৪০ সে যে এসেছিলো


৪৪১ পূর্ব অরুণাচলে তুমি যাবে এসেছিলে


৪৪২ এসো কাছে মম প্রাণের প্রিয়তম


৪৪৩ আলোর মেলা করে যে খেলা


৪৪৪ বনের ভ্রমরা ফুল পানে ধায়


৪৪৫ প্রভু মম প্রিয়তম


৪৪৬ আলো আলো আলো আমার


৪৪৭ (প্রভু) তোমায় কী কহিব আর


৪৪৮ মণিদীপ জ্বেলে রেখেছি


৪৪৯ মনে আসিয়াছো প্রাণে আসিয়াছো


৪৫০ সে আমার আপনার


৪৫১ তোমারই তরে সাজি ভরে


৪৫২ অরুপ সাগরে স্নান করিয়াছো


৪৫৩ তোমারেই আমি ভালবাসিয়াছি


৪৫৪ এসো আমার ঘরে প্রভু কৃপা করে


৪৫৫ আমার সেদিন হারিয়ে গেছে


৪৫৬ সে যে এসেছে সে যে এসেছে


৪৫৭ আমি তোমার মনেতে আছি গো


৪৫৮ যদি তোমায় না ডাকি গো তুমি


৪৫৯ আমায় নিয়ে তোমার এ কী খেলা


৪৬০ পূর্বাকাশে রঙীন রাগে


৪৬১ (তুমি) কাহার তরে আছো বসে


৪৬২ আমি চারিদিকে দেখি নোতুন হাওয়া


৪৬৩ মনের ব্যথা মনই জানে


৪৬৪ বরষার রাতে তুমি এসেছিলে


৪৬৫ তুমি কৃপা করো মোরে


৪৬৬ দিনের পরে রাত্রি আসে


৪৬৭ আলোর পথিক এসে গেছে


৪৬৮ (মোরা) মুক্ত ভূমির মেয়ে


৪৬৯ তুমি নাহি এলে পরে


৪৭০ প্রভু আমার প্রিয় আমার


৪৭১ পূর্ণিমা রাতে নীরবে নিভৃতে


৪৭২ (তুমি) আমারে চাও না ইহা জানি


৪৭৩ মোর ফুলের বনেতে তুমি এসেছো


৪৭৪ তোকে গড় করি ননদ তুই মোর কথা রাখ


৪৭৫ হলুদ গাঁদার ফুল কনক চাঁপার ফুল


৪৭৬ বিহান কালে তালে তালে


৪৭৭ শাল গাছেতে তাল ডাংরা তাল গাছেতে ধুনা লো


৪৭৮ আকাশে চুমকি গাঁথা


৪৭৯ জোড়েতে হড়কা নামে


৪৮০ মর্মবীণায় একই সুর আজি বাজে


৪৮১ তুমি সবারে সমান ভালবাস


৪৮২ ওগো প্রভু তোমার দেখি এ কী লীলা


৪৮৩ মিলনের দিনে প্রভাত কিরণে


৪৮৪ এসেছো পরাণ ভরিয়া এসেছো


৪৮৫ মোরা কাজ নিয়ে বেঁচে আছি


৪৮৬ কাছে নাহি আসো কভু


৪৮৭ তোরা বল গো তোরা মোরে বল


৪৮৮ উদ্বেল হিয়া তোমারই লাগিয়া


৪৮৯ মনেতে ভোমরা এলো


৪৯০ অজানা পথিক এক দেশকে এসেছে


৪৯১ কনক কিরণে হারায়ে হিরণে


৪৯২ বন্ধু তোমার লাগি সাজায়ে রেখেছি ঘর


৪৯৩ ফুলের বনে ভোমরা এলো


৪৯৪ তোমার ভাবটি ভেবে মেতেছে যে মন


৪৯৫ আমায় দূরে রেখো নাকো


৪৯৬ নূতন রূপেতে আসিয়াছো তুমি


৪৯৭ সূর্য উঠেছে তমঃ নাশিয়াছে


৪৯৮ ঝুম্ ঝুমাঝুম্


৪৯৯ মোর নাহি যে সময়


৫০০ তুমি যে ফুল দিয়াছো ভরিয়া

৫০১-১০০০

৫০১ দিনের আলোয় কেন আসো নি


৫০২ দিনের শেষে ঘুমের দেশে


৫০৩ সেই হারানো দিনের কথা মনে পড়ে


৫০৪ যারা চেয়েছে তোমায় কাছে


৫০৫ আমার কাছে তুমি এলে


৫০৬ প্রভু আমায় কৃপা করো


৫০৭ প্রভু তোমার লীলা অপার


৫০৮ কী বাঁশী বাজালি বঁধু


৫০৯ ওগো মোর গীতিময়


৫১০ শুক্তির বুকে মুক্তার মত


৫১১ এসো গো প্রভু এসো মোর হিয়ায়


৫১২ আমার মনের মানুষ তুই কোথা গেলি


৫১৩ পাহাড়ে আজ রঙের মেলা


৫১৪ হারিয়ে গেছি বনের পথে


৫১৫ তোমার কথা ওগো প্রভু


৫১৬ যে তোমারে চায় তোমা পানে চায়


৫১৭ আমি তোমায় কভু ভুলিবো না


৫১৮ আমি দীপ জ্বেলে যাই চলিয়া


৫১৯ কে গো আসিয়াছো


৫২০ কে গো পলাশ বনে


৫২১ দূরে কেন আছো প্রভু


৫২২ সাজাবো বলে মালা পরাবো বলে


৫২৩ কে গো তুমি নাম-না-জানা


৫২৪ মনের মধু প্রাণের বঁধু


৫২৫ বন্ধু আমার নিকট আমার


৫২৬ ধূপে দীপে মনের মধুতে


৫২৭ তুমি যেও না তুমি যেও না


৫২৮ সবায় নিয়ে সবার মাঝে


৫২৯ মনের দুয়ারে অর্গল দিয়ে


৫৩০ সকল মনের তুমি যে রাজা


৫৩১ তোমারে দেখেছি যবে চাঁপার বনে


৫৩২ মর্মরমুখর মাধবী মায়াতে


৫৩৩ (আজি) শ্রাবণ ঘন গহন রাতে


৫৩৪ মমতার মধুরিমা মাখিয়া


৫৩৫ আমার এ ভালবাসা তোমারই লাগি


৫৩৬ তরুণ তপন তন্দ্রা ত্যজিয়া


৫৩৭ তোমার তালেতে তাল মেলাতে


৫৩৮ আলো ঝরা কোন সুদূর প্রভাতে


৫৩৯ বন্ধু তোমার রূপের ছটায়


৫৪০ তুমি কোথায় ছিলে কোথায় থাকো


৫৪১ মুখর প্রাতে নীরব কেন


৫৪২ (আমি) দূর নীলিমার বলাকা


৫৪৩ কাহার লাগিয়া উচাটন মন


৫৪৪ এ কী তোমারই লীলা তোমারই খেলা


৫৪৫ তুমি অক্ষর অজর অবিনাশী


৫৪৬ (তুমি) শ্বেত শতদলে স্পন্দিত করে


৫৪৭ রুদ্র তোমার উত্তাল তালে


৫৪৮ খুঁজিয়া বেড়াই তোমারে সদাই


৫৪৯ এসো এসো প্রিয়তম


৫৫০ পথ ভুলে যবে চলিয়া এসেছো


৫৫১ মধুর হাসিতে ফুল ফোটায়েছো


৫৫২ পসরা ভরিয়া প্রাণের পরশ


৫৫৩ নৃত্যের তালে ভুবন মাতালে


৫৫৪ নাম-না-জানা কে তুমি এলে


৫৫৫ তুমি দূর আকাশের ধ্রুবতারা


৫৫৬ তুমি যে আমার নয়নের মণি


৫৫৭ ধরা দিতে চাও না যখন


৫৫৮ তুমি যে দিয়েছো নাড়া


৫৫৯ আমি তোমারে ভুলিতে পারি না


৫৬০ আলোঝলমল পূর্ণিমা রাতে


৫৬১ মণির দ্যুতিতে ফুলের হাসিতে


৫৬২ রূপের মাঝারে তোমারে পেয়েছি


৫৬৩ আলোর ধারায় তুমি ভাসো


৫৬৪ আজি ভুবন-ভরা আনন্দে


৫৬৫ যা তুমি চাও গো প্রভু


৫৬৬ কাজল মেঘে বজ্রে ডেকে


৫৬৭ রুদ্র তোমার অশেষ কৃপায়


৫৬৮ তোমারে দেখেছি যবে শারদ প্রাতে


৫৬৯ আকাশ আজি দিলো ধরা


৫৭০ নয়ন মেলিয়ো


৫৭১ শয়নে স্বপনে জাগরণে


৫৭২ আঁখি ভরা ছিলো


৫৭৩ ভাবে ভরা আকাশে ভাবাতীত সকাশে


৫৭৪ মায়া-মালঞ্চে মায়ার মুকুল


৫৭৫ নীলাঞ্জন আঁকিয়া নয়নে


৫৭৬ আমি ধূলিকণা আলোর সাগরে


৫৭৭ চির নূতনে যতনে মানসরতনে


৫৭৮ তোকে পরাবো বলে চাঁপা-বউল ফুলে


৫৭৯ যেওনা যেওনা দূরে যেওনা


৫৮০ নন্দনবনে কে গো এলে


৫৮১ সুমধুর তুমি সুশোভন


৫৮২ তোমার আসা-পথ চেয়ে


৫৮৩ মনের মাঝারে বসে গোপন কথা শোণো


৫৮৪ উচ্ছল ছলছল তরঙ্গে


৫৮৫ যে ফুল ফুটেছে মোর মনের গভীরে


৫৮৬ কালভৈরব উত্তাল তালে


৫৮৭ নূতন ছন্দে তুমি মেতেছিলে


৫৮৮ (তব) নৃত্যের তালে উত্তাল হলো


৫৮৯ তুমি এসো আমার ঘরে কৃপা করে


৫৯০ আসো না যাও না কভু


৫৯১ এ কী মমতা হাসিতে


৫৯২ আলোর অধীশ তুমি এসেছো


৫৯৩ দূর অম্বরে প্রভাত সমীরে


৫৯৪ কে গো আলো জ্বালো


৫৯৫ মধুর স্বপনে মৃদুল চরণে


৫৯৬ মধুর আননে মনের কাননে


৫৯৭ (প্রভু) চরণ কি কভু পাবো না


৫৯৮ প্রভু থেকো আমার পাশে পাশে


৫৯৯ আমি জাগিয়া রয়েছি সারা রাতি


৬০০ এই আলোকোজ্জ্বল অরুণ আকাশে


৬০১ চাও প্রভু আঁখি তুলে


৬০২ তোমারই লাগিয়া তোমারে ভালোবাসিয়া


৬০৩ মনের মাঝারে এ কী তব লীলা


৬০৪ আকাশ বাতাস ভরে গিয়েছিলো


৬০৫ এসো এসো এসো


৬০৬ তোমারে পেয়েছি কৃষ্ণা তিথিতে


৬০৭ ভাবের অঞ্জন আঁকিয়া আঁখিতে


৬০৮ এসো গো প্রিয় তুমি মোর হিয়াতে


৬০৯ আমি তোমায় জানি


৬১০ বন্দিত তুমি বিশ্বভুবনে


৬১১ আলোকের ঝরণা-ধারায়


৬১২ (তুমি) এসেছো আলোর বানে


৬১৩ তোমারে খুঁজেছি


৬১৪ যাদের পেয়েছি নিকটে পেয়েছি


৬১৫ আবার কি রে আলো এলো


৬১৬ অনেক দিনের পরে অনেক ঘুরে ঘুরে


৬১৭ মনের কোণে রয়েছো গোপনে


৬১৮ সৌরভ এনে মন-উপবনে


৬১৯ এসেছি আলোর স্রোতে


৬২০ তুমি আসিয়াছো তমঃ নাশিয়াছো


৬২১ তুমি এসেছিলে তন্দ্রা ভেঙ্গেছিলে


৬২২ যদি চলে যেতে চাও কিছু বলিবো না


৬২৩ তন্দ্রাবিজড়িত মোহ-সমাবৃত


৬২৪ অনাহূত হয়ে এসেছিলে ঘরে


৬২৫ (মোর) হৃদয়ে এসো গো কৃপা করে


৬২৬ কমল কলি কও না কথা


৬২৭ চরণে আজ কিসের দ্বিধা


৬২৮ (তুমি) অতৃপ্ত প্রাণে তৃপ্তি


৬২৯ (আমি) তোমায় ভুলে গিয়েছিনু


৬৩০ তোমার কথা ভেবে ভেবে


৬৩১ যুগে যুগে ডাকিয়াছি


৬৩২ প্রভু তুমি এসো ঘরে


৬৩৩ আঁধার সাগর পার হয়ে এলে


৬৩৪ দারুণ নিদাঘ তাপে


৬৩৫ নন্দন মধু সুখে দুঃখে বঁধু


৬৩৬ (তুমি) নৃত্যের তালে ঝঙ্কৃত হলে


৬৩৭ কে গো মোহন হাসো


৬৩৮ রূপেরই আলোকে অরূপে পেয়েছি


৬৩৯ আলোর এই যাত্রাপথে


৬৪০ আমার আঁধার ঘরের আলো তুমি


৬৪১ তুমি মোর সব চেয়ে আপনার


৬৪২ (তুমি) উচ্ছল চঞ্চলতা


৬৪৩ আমি তো তোমারে ভাবিনি জীবনে


৬৪৪ তোমারই লাগিয়া তোমারে স্মরিয়া


৬৪৫ তুমি যেও না যেও না ওগো সখা


৬৪৬ তুমি জগত্তারণ চেতনাঘন


৬৪৭ তুমি যে এসেছো আজ


৬৪৯ আকাশের চাঁদ তুমি


৬৪৯ এসেছো ঘরে মোর (যখন)


৬৫০ আশা নিয়ে পথ চেয়ে


৬৫১ যেও না তুমি যেও না


৬৫২ তোমার কাছে চাইতে গিয়ে


৬৫৩ তোমায় ছেড়ে কোথায় যাবো


৬৫৪ তোমা লাগি মোর মনে কত ব্যথা


৬৫৫ কলি ফুটেছে অলি জুটেছে


৬৫৬ গান শোণায় আজি কে এ ভাঙ্গা মনে


৬৫৭ রঙীন ফানুস উড়িয়ে দিয়ে


৬৫৮ অমৃতসার দিব্য আধার


৬৫৯ চেতনাশলাকা সাথে মধুমালিকা হাতে


৬৬০ যেও না শোণ কথা বোঝ ব্যথা


৬৬১ অবোধ কানু কোন্‌ কুহকে


৬৬২ মন্দ্রিত মনমোহন মম


৬৬৩ ধ্যানের ধূপে প্রাণের প্রদীপে


৬৬৪ হারিয়ে গেছি আজকে আমি


৬৬৫ আমায় ছাড়িয়া কোথা যাও এ নিরজনে


৬৬৬ কে তুমি এলে গো আজি


৬৬৭ হাসিতে ফুল ফোটালে অলি জোটালে


৬৬৮ তোমার কথা ভেবে ভেবে


৬৬৯ প্রভু হে মম তোমারই সম


৬৭০ ফুলের বনে ভোমরা এলো


৬৭১ (তুমি) হারিয়ে যাওয়ার দখিণ হাওয়া


৬৭২ শুদ্ধসত্ত্ব পাবকের শুচি


৬৭৩ এসো গো এসো গো এসো গো (তুমি)


৬৭৪ আমি গেঁথে রেখেছি এ ফুলের মালা


৬৭৫ পথ ভুলে যবে এসেই পড়েছো


৬৭৬ (সেই) বাদল রাতে সেই আঁধার পথে


৬৭৭ দর্প চূর্ণ করিয়া থাকো


৬৭৮ হৃদয় কমলে সলজ্জে কমলে


৬৭৯ তোমারে ভালোবাসিয়া


৬৮০ তুমি মোর জীবনের আঁধারের ধ্রুবতারা


৬৮১ তন্দ্রা-জড়িমা তখনও কাটেনি


৬৮২ অমরা মাধুরী ছড়ায়ে দিয়েছো


৬৮৩ যেও না ওগো প্রভু


৬৮৪ জ্ঞানের জগতে খুঁজেছি তোমারে


৬৮৫ কোন্‌ আলোর রাজ্য হতে এসেছো


৬৮৬ আমি তোমায় চিনি তোমায় ডাকি


৬৮৭ নয়ন কোণে হেসেছো


৬৮৮ (তুমি) বলো কী বা চাও


৬৮৯ তোমারেই ভালোবেসেছি


৬৯০ আলোকের ওগো পথিকৃৎ


৬৯১ তুমি এসেছো তুমি এসেছো


৬৯২ আলোকের এই পূর্ণোৎসবে


৬৯৩ তন্দ্রার পারে তরুণ তপন


৬৯৪ আজি প্রভাতে হঠাৎ কি গো


৬৯৫ কাহাকেও পাপী ভেবে


৬৯৬ স্বর্ণ শতদল সম তুমি গো


৬৯৭ তোমাকে পাবো বলে


৬৯৮ ফুলেরা পাপড়ি মেলে


৬৯৯ কবে যাত্রা হলো শুরু


৭০০ তুমি সুধাতরঙ্গে


৭০১ মহাপ্রাণেরই পরশ এনেছো


৭০২ তব প্রেরণায় পুষ্পিত হলো


৭০৩ কৃষ্ণা রজনী যায় চলে


৭০৪ ঝঞ্ঝায় তুমি উদ্দাম


৭০৫ যুক্তি তর্কে ধরা নাহি দাও


৭০৬ তুমি কি ভেবে চলেছো


৭০৭ তোমার পথের শেষ কোথায়


৭০৮ উদ্বেল হিয়া কারে চায়


৭০৯ মনের গহনে মম কে


৭১০ অরূপ আকাশে রূপের প্রদীপে


৭১১ রূপাতীত প্রভু তুমি


৭১২ মনের মাঝে খুঁজি


৭১৩ চক্রের পরিধিতে আমি


৭১৪ কোন্‌ সুদূরের স্রোতে ভেসে এসেছো এসেছো


৭১৫ তাই ভাবি গো মনে (তোমারই স্মরণে)


৭১৬ গানের সাগর যেথায় মেশে


৭১৭ তোমার সঙ্গে মোর পরিচয়


৭১৮ পাছে ধরা পড় (তাই অনন্ত)


৭১৯ কবে আমি বাইরে এলুম


৭২০ আঁধার রাতে আলোর ঝিলিক তুমি


৭২১ দুঃখহরণ দুঃখীর ব্যথা


৭২২ তোমার লীলা তুমিই বোঝ


৭২৩ গানের কখনো শেষ হয় নাকো


৭২৪ তোমার নামের ভেলায়


৭২৫ এ পথ গেছে (কোনখানে)


৭২৬ তোমার কাছে আমার প্রশ্ন


৭২৭ কে গো গেয়ে যায় সন্ধ্যাতারায়


৭২৮ জীবন সরিতা মোর বহিয়া যায়


৭২৯ তোমার চরণ লাগি তোমার করুণা মাগি


৭৩০ তুমি দূর নও (গো)


৭৩১ শারদ প্রাতে মন মাতাতে


৭৩২ তুমি আসো কেন যদি যাবে চলে


৭৩৩ তোমারে চাহিতে গিয়া ভুল করে


৭৩৪ আজি তোমারই পরশে তোমারই হরষে


৭৩৫ দূর অলকার আলো গো (তুমি)


৭৩৬ তুমি যে ডেকেছো আমায়


৭৩৭ তুমি এসো এসো মোর ঘরে বসো


৭৩৮ দূরে থাকা বন্ধু আমার


৭৩৯ তোমাকে ভালোবেসে যাই যে ভেসে


৭৪০ তোমার মধুর হাসি বিশ্বভুবনে ভাসি


৭৪১ জল্ভরা মেঘে বিজলি হানিয়া


৭৪২ (চিনেছি) তোমারে চিনেছি আমি


৭৪৩ দূরের সখা (মোর)


৭৪৪ অশনি-উল্কা উপেক্ষা করি


৭৪৫ ঝটিকার রাতে তুমি এসেছিলে


৭৪৬ নিজেরে ফোটায়েছো তুমি


৭৪৭ (তুমি) আমার হৃদয় মাঝে এসো গো প্রিয়


৭৪৮ তুমি ভুলো না মোরে


৭৪৯ পুষ্পে পুষ্পে তোমার মাধুরী


৭৫০ এসেছি আমি এসেছি 


৭৫১ তুমি না বলে এলে প্রভু না বলে গেলে


৭৫২ এসেছো পুরুষোত্তম এসেছো


৭৫৩ গানের তরী ভাসিয়ে দিলুম


৭৫৪ সে এক অজানা পথিক এসেছে


৭৫৫ কাজলা রাতে মেঘমন্দ্রেতে


৭৫৬ তুমি যে পথ ধরিয়া এসেছিলে


৭৫৭ তুমি বিশ্বকে দোলা দিলে


৭৫৮ এলে তুমি এলে এলে প্রভু


৭৫৯ ব্রজের সে দিন হারাইয়া গেছে


৭৬০ দীপ নিবে গেছে দমকা হাওয়ায়


৭৬১ মধুর বাঁশীতে মধুর হাসিতে


৭৬২ তোমায় ঘিরে’ যত আশা


৭৬৩ অজানা পথিক এসেছে আলো জ্বেলেছে


৭৬৪ তোমার লাগি নিশি-দিন


৭৬৫ আমি তোমার হয়ে গেছি


৭৬৬ তোমারে ভালবেসে তোমারে পাওয়ার আশে


৭৬৭ জ্যোতির সায়রে পূব অম্বরে


৭৬৮ মানব মনীষা মন্থন করি


৭৬৯ গীতিমঞ্জূষা রঙে রাঙা ঊষা


৭৭০ তোমার ভরসায় তরী মোর ভেসে যায়


৭৭১ এসো তুমি এসো এসো আমার মনে


৭৭২ সুরতরঙ্গে মোহন রঙে


৭৭৩ বকুলের ফুলগুলি ঝরে পড়েছে


৭৭৪ তোমারই আশায় দিন গুনে যাই


৭৭৫ আমার জীবন ধন্য করেছো


৭৭৬ মন যদি মোর কভু ভেঙ্গে যায়


৭৭৭ তোমারই ভরসায় মাঝ-দরিয়ায়


৭৭৮ আমার ঘরে তুমি এলে


৭৭৯ ওগো মধুপ তুমি এসো আমার কাছে


৭৮০ কোন্‌ অতীতে সেই কোন্‌ অতীতে


৭৮১ আমি তোমার লীলা দেখে মুগ্ধ হলাম


৭৮২ (তোমারে) কে চিনিতে পারে বলো


৭৮৩ ওগো প্রিয় ওগো প্রিয়


৭৮৪ তোমারে পাবার আশে তোমারে পেতে পাশে


৭৮৫ (আমি) এসেছি তোমারই আশে


৭৮৬ এসেছো আমার হৃদয়ে এসেছো


৭৮৭ সকল ভাবের আধার তুমি


৭৮৮ হৃদয় বিদারী মরম নিঙাড়ি


৭৮৯ অজানা পথিক (ওগো)


৭৯০ রূপেরই আলোতে রূপাতীত প্রভু জাগো


৭৯১ এলে মোহন তালে


৭৯২ (তুমি) ভালোবাসো যদি এসো


৭৯৩ কবে তুমি আসবে বলে


৭৯৪ আমি তোমায় চিনি না গো প্রভু


৭৯৫ (সেই) স্বপ্নভরা রাতে


৭৯৬ তোমার লীলায় তুমি প্রভু


৭৯৭ তোমারে ভালোবাসি তোমারই লাগিয়া


৭৯৮ ঢেলে পরাণের মধু


৭৯৯ তুমি যে আমার প্রভু


৮০০ তোমারে চেয়েছি সুরে রূপে রাগে


৮০১ তুমি আমায় ভালোবেসেছিলে


৮০২ তোমাকে দেখেছি মনের মুকুরে


৮০৩ নিজের আলোয় তুমি এসেছিলে


৮০৪ ছন্দে সুরে তুমি এসো প্রভু


৮০৫ তোমাকেই আমি ভালোবাসিয়াছি


৮০৬ আমি সুধার স্বননে ভাসি গো


৮০৭ তুমি আলোর সাগর থেকে এসেছো


৮০৮ মন যদি মোর ভেঙ্গে পড়ে কভু


৮০৯ হিয়ার বীণায় নব দ্যোতনায়


৮১০ আঁধার সাগর পারে এসেছো


৮১১ আলোর ঝরনা নামিয়া এসেছে


৮১২ উদয়াচলে মন মাঝে এলে


৮১৩ সব প্রীতিতে প্রাণ ভরেছো


৮১৪ তব সুরের তানে মম মনবিতানে


৮১৫ তোমারই নামে তোমারই গানে


৮১৬ (যদি) নয়নে না ভাসে আর কারও ছবি


৮১৭ তুমি আমায় জানো


৮১৮ এসো তুমি এসো


৮১৯ আজি বসন্তে মোর ফুলবনে


৮২০ তুমি না ডাকিতেই এলে আমার ঘরে


৮২১ তুমি আমারে ভালোবেসে


৮২২ তোমারে ভালোবেসেছি নির্দ্বিধায়


৮২৩ তোমার তরে বসে বসে


৮২৪ নয়ন ভরিয়া দেখিবারে চাই


৮২৫ তোমার কাছে আমি


৮২৬ ভোরের আলোয় তোমায় পেলুম


৮২৭ আলোর মহোৎসবে (কেন)


৮২৮ জলে ভরা এই বরষায়


৮২৯ বিশ্ব তোমার মনে নাচে


৮৩০ তুমি যদি জগৎজোড়া


৮৩১ তোমারই তরে আলো ঝরে


৮৩২ তব লীলারসে ভেসে আছি


৮৩৩ কেন আসো না আমার কাছে


৮৩৪ তোমার কৃপাকণা পেলে আমি


৮৩৫ তোমার কৃপায় সব কিছু হয়


৮৩৬ প্রাণের আলোকে তোমারে পেয়েছি


৮৩৭ তোমার হিয়ায় আমার


৮৩৮ আমি আর কোন কিছু ভুলি না


৮৩৯ আঁধার সাগর তীরে বসে বসে


৮৪০ কে গো তুমি এলে আমারই মনে


৮৪১ আলোর সায়রে সহাস সমীরে


৮৪২ প্রদীপ জ্বালিয়া গিয়াছো চলিয়া


৮৪৩ তোমারে দেখিনু যবে মনের কোণে


৮৪৪ তুমি সবার নয়নে বরষা এনেছো


৮৪৫ (আজি) বাদল ঘন গহন রাতে


৮৪৬ আমি তোমাকেই নিয়ে আছি গো


৮৪৭ সেই আঁধার-ভরা ভয়-ধরানো রাতে


৮৪৮ ঝঞ্ঝার বুকে দেখেছি তোমাকে


৮৪৯ প্রণাম পাঠানু গানে গানে


৮৫০ আমার আঁধার ঘরের আলো তুমি


৮৫১ আপন মনে বসে বসে


৮৫২ আমি আরও ব্যথা সইতে পারি প্রভু


৮৫৩ মনের কোণে কে এলো (মোর)


৮৫৪ কে তুমি হৃদয়ে এসে


৮৫৫ জড়িয়ে আছি দেখো প্রভু


৮৫৬ ফুলের সুবাসে এসো (তুমি)


৮৫৭ তুমি যে পথ দেখায়ে দিয়াছো


৮৫৮ এসেছো হিয়া জিনেছো


৮৫৯ অরূপ সাগর পার হয়ে এলে


৮৬০ হিয়ার গহনে বারেক যদি তাকাও


৮৬১ অখণ্ড মনে অনিদ্র ধ্যানে


৮৬২ মনের উপবনে মলয় পবনে এসো


৮৬৩ রাগের মাধুরী হারায়ে ফেলেছি


৮৬৪ তুমি নিকটে থেকেও দূরে আছো


৮৬৫ আলোর সাগরে ঢেউ জাগায়েছো


৮৬৬ ছন্দে ভুবন ভরা


৮৬৭ তন্দ্রা দাও কাটিয়ে


৮৬৮ আমি তোমার ডাকে বেরিয়েছি


৮৬৯ আলো-ঝরা যে পথ দেখায়ে দিয়াছো তুমি


৮৭০ (আমি) তোমাকেই বুঝিয়াছি সার


৮৭১ ফুলের নির্যাসে তুমি এসেছো


৮৭২ জ্যোতির সাগর এগিয়ে চলেছে


৮৭৩ আলোকের ওই ঝর্ণাধারায়


৮৭৪ (তুমি) সবায় ভালোবাসিয়াছো


৮৭৫ আমি চাই আলোকের পথ ধরে যাই


৮৭৬ এগিয়ে চলে তোমার রথের চাকা


৮৭৭ তোমার চরণতলে তোমার চরণতলে


৮৭৮ মানবতার কেতন সম্মুখে ধরি


৮৭৯ আলোকের এই উত্তরণে


৮৮০ মানব সমাজ অবিভাজ্য


৮৮১ চলে গেলে মোরে ফেলে যদি


৮৮২ তোমার নামের ভরসায় প্রভু


৮৮৩ তব আগমনে উদ্বেল পরমাণু


৮৮৪ তুমি যে এসেছিলে


৮৮৫ আমার ঘরে এসো প্রভু


৮৮৬ আজ তোমায় পেলুম


৮৮৭ তব রাতুল চরণে বরণে বরণে


৮৮৮ অরুণ আলোকে তরুণ প্রভাতে


৮৮৯ তোমার লাগি রাতি জাগি


৮৯০ বিজনে বসিয়া কী যেন কহিলে


৮৯১ ভালোবেসেছি হিয়া সঁপেছি


৮৯২ তন্দ্রা ভেঙ্গে দিও


৮৯৩ বিশ্বে জাগায়ে ত্রিলোক কাঁপায়ে


৮৯৪ সবাই তোমায় (প্রভু)


৮৯৫ কবে তুমি রাঙিয়েছিলে


৮৯৬ দমকা হাওয়ায় কে গো চলে যায়


৮৯৭ তুমি ভালোবাসো ভালোবাসিতে জানো


৮৯৮ তোমাকে চাইছি যত যাও যে সরে


৮৯৯ যে তোমারে ভালোবাসে


৯০০ পীত পর্ণগুলি ঝরে যায়


৯০১ অপার পয়োধি পার হয়ে এলে


৯০২ ও কে চলে যায় ও কে চলে যায়


৯০৩ তুমি যখন এসেছিলে


৯০৪ কৃপা করেছো ধরা দিয়েছো


৯০৫ তুমি সবার প্রাণের প্রিয়


৯০৬ এসো তুমি আমার ঘরে


৯০৭ আমি তোমাকেই জানি


৯০৮ প্রতি পলে তোমায় ডেকে


৯০৯ স্বপ্নে ছিলো কাছে


৯১০ সেই মন্দ মধুর বাতে


৯১১ আমার গ্রামে যাইয়ো রে বন্ধু


৯১২ মলয়ানিলে তুমি এসেছিলে


৯১৩ দিবা-নিশি মোর আঁখি ঝরে


৯১৪ (মোর) মনের মাধুরী উজাড় করিয়া


৯১৫ কাজল কালো আঁধার রাতে


৯১৬ (আমি) চারিদিকে চাই বারে বারে


৯১৭ তোমারে বেসেছি যে ভালো


৯১৮ অরূপ প্রভু রূপেরই লীলায়


৯১৯ তোমার নামে গানে হয়েছি তন্ময়


৯২০ ঝরা পাতা কাঁদে বনে


৯২১ আমার ঘরে তুমি এলে


৯২২ অতল সিন্ধুর মণি তুমি


৯২৩ এসেছিলে আলোর স্রোতে


৯২৪ গানেরই স্রোতের টানে


৯২৫ এই না সোণা-ঝরা প্রভাতে


৯২৬ পুষ্পে তোমার হাসি


৯২৭ এসো ধীরে ধীরে


৯২৮ তোমার আমার এই পরিচয়


৯২৯ মনে এসো মনে বসো


৯৩০ তোমার লাগি মালা গাঁথা


৯৩১ মনের বীণা কী কথা কয়


৯৩২ অলখ পুরুষ তুমি


৯৩৩ হৃদয়ে এসো প্রভু


৯৩৪ মনের প্রদীপ নিবিয়া গেহে (missing)


৯৩৫ এসেছো হিয়া জিনেছো


৯৩৬ বলে যাও বলে যাও ওগো প্রভু


৯৩৭ তোমারে চাই যে মনে প্রাণে


৯৩৮ (যবে) জীবনে প্রথম বঁধুয়া এসেছে


৯৩৯ আলোর সারথি ময়ূখমালায় আসে


৯৪০ সকল কুসুমে সুরভি তুমি


৯৪১ আমার রুদ্ধ ঘরে আলোয় ভরে


৯৪২ তুমি আমার আশার আলো


৯৪৩ তুমি নির্দয় কেন


৯৪৪ আমি তোমারেই চেয়েছি


৯৪৫ মধুবনে মধুপ এলো


৯৪৬ এসো প্রভু আমার ঘরে


৯৪৭ আমি তোমায় ডাকিনি প্রভু


৯৪৮ তোমারেই আমি ভালোবাসিয়াছি


৯৪৯ তুমি আমায় নিয়ে এলে


৯৫০ তোমার পথ পানে সবাই চেয়ে


৯৫১ ফুলবাগানে ভোমরা এলো


৯৫২ তুমি এসেছো মধু ঢেলেছো


৯৫৩ তোমারই লাগিয়া আছি যে জাগিয়া


৯৫৪ তোমার এ ভালবাসা (অসীমে মেলামেশা)


৯৫৫ মোর মন মাঝে এলে রাজার বেশে


৯৫৬ আলো-ঝরা রাতে তুমি এলে


৯৫৭ তুমি কাহার তরে আছো পথ চেয়ে’


৯৫৮ পথের ভুলে আজি এলে


৯৫৯ অচিন সে কোন্‌ সুরে হৃদয়েরই মধুপুরে


৯৬০ তুমি ধরা দিলে


৯৬১ যদি অলস প্রহরে মোরে


৯৬২ আমি তোমার পথের কাঁটা নই


৯৬৩ তোমারে শোণাবো যে গান


৯৬৪ আকাশে আজ কিসের আলো


৯৬৫ এসেছো কাহারই ডাকে


৯৬৬ আলোকের এই ঝর্ণাধারায়


৯৬৭ তাহার লাগিয়া উন্মদ উত্তাল


৯৬৮ (আজ এগিয়ে চলো) সকল মানুষ ভাই


৯৬৯ জ্যোতির মহাসাগর মাঝে


৯৭০ এসেছি তোমারই কৃপায়


৯৭১ তোমারই মোহন বাঁশী


৯৭২ আজি নৃত্যের তালে উত্তাল নাদতনু


৯৭৩ আমি শুভ পথ ধরে’ চলিবো


৯৭৪ তোমার এ বিশ্বলীলা


৯৭৫ তোমারেই আমি ভালোবাসি


৯৭৬ তুমি সকল হিয়ার মধ্যমণি


৯৭৭ আকাশ-বাতাস রঙে ভরা


৯৭৮ আলোর রথে আসবে তুমি


৯৭৯ অরুণ রাঙা পূর্বাকাশে


৯৮০ তুমি এসেছো ভালো বেসেছো


৯৮১ তুমি উচ্ছল চঞ্চল এ কোন্‌ মায়ায়


৯৮২ তুমি চক্রনেমী


৯৮৩ মম মাধবী কুঞ্জে পুঞ্জে পুঞ্জে


৯৮৪ (আমি) তোমার তরেই জেগে আছি


৯৮৫ মন জিনিয়া নিলো কে সে অনুরাগী


৯৮৬ আনন্দ-উচ্ছল পরিবেশে


৯৮৭ তোমার তরে বসে’ বসে’


৯৮৮ (তুমি) উচ্ছল প্রীতি হিয়ার সারথি


৯৮৯ মনের গহনে কি জানি কেমনে


৯৯০ কার তরে তুই পথে ঘুরিস


৯৯১ আমার মনের মধুবনে


৯৯২ এত ডাকি তবু সাড়া নাহি দাও


৯৯৩ পুষ্পে পুষ্পে অলকে অলকে


৯৯৪ নবীন মুকুলে হাসি-মাখা ফুলে


৯৯৫ পাশরিতে তারে যত চাই তবু


৯৯৬ আলোর পথে যে এসেছে


৯৯৭ আঁধার রাতে উজান পথে


৯৯৮ হৃদয় ভরে’ নিবিড় করে’


৯৯৯ আমি কাহাকেও নাহি করি ভয়


১০০০ অরুণোদয়ে রঙীন হৃদয়ে

১০০১-১৫০০

১০০১ তোমার কথা অনেক শুনেছি


১০০২ তুমি যে বাসতে ভালো ভুলো না


১০০৩ তুমি এসেছিলে ভালোবেসেছিলে


১০০৪ (তুমি) এত ডাকার পরে আজি এসেছ


১০০৫ জ্যোতিতরঙ্গে তুমি এসো


১০০৬ চলার পথে এত কাঁটা


১০০৭ (তুমি) আশার আলো দেখিয়ে যাও


১০০৮ ঝঞ্ঝা-ঝটিকা সাথে বর্ষামুখর রাতে


১০০৯ আলোর রথ যায়


১০১০ ঘন বরষা রাতে কেতকী মায়াতে


১০১১ শীতের কুয়াশা কাটিয়া গিয়াছে


১০১২ তুমি জান আমি জানি


১০১৩তুমি অন্ধকারে জ্যোতিরেখা


১০১৪ হারিয়ে গেছি আজ কে আমি 


১০১৫ সূর্য তখন দিগ্বলয়ে


১০১৬ (তুমি) কে গো এলে এই বরষায়


১০১৭ তুমি আমার ধ্যানের ধ্যেয়


১০১৮ তুমি এসো মোর মন্দিরে


১০১৯ যে অনলশিখা দহে অহমিকা


১০২০ তোমার এ কী ভালবাসা


১০২১ হেরে’ গিয়েও মান না হার (তুমি)


১০২২ আলোর দেশের পাখনা মেলে’


১০২৩ তোমায় যদি ভুলে’ থাকি


১০২৪ তুমি আমায় ভালো বেসেছিলে


১০২৫ আমার জীবনে তুমি কে


১০২৬ দীপশিখা নিয়ে তুমি এলে


১০২৭ তোমারে চাই যে একান্তে


১০২৮ তোমাকে বুদ্ধিবলে বলো কে বা পাবে


১০২৯ আমি তোমার তরে ঘুরে’ ঘুরে’


১০৩০ তুমি কে গো এলে


১০৩১ বসিয়া বিজনে তাহারই ধ্যানে


১০৩২ আলোকের এই উত্তরণে


১০৩৩ আলোর এই অগ্নিরথে


১০৩৪ মনের গহনে গোপনে গোপনে


১০৩৫ তব তরে মালা গেঁথেছি প্রভু


১০৩৬ তুমি এলে আলো আনলে


১০৩৭ কাছে এসে’ দূরে সরে’ গেলে কেন


১০৩৮ এসো তুমি এসো


১০৩৯ নির্জন কাননে আমারে রেখে’ গেলে


১০৪০ (আজ) চাঁদে মেঘে লুকোচুরি


১০৪১ অনেক শুণিয়া অনেক ভাবিয়া


১০৪২ তুমি প্রভু শুধু আমারই


১০৪৩ যদি ভুল পথ ধরে’


১০৪৪ কার তরে তুমি দিবানিশি জাগ


১০৪৫ নীরব রাতে ক্লেশ ভোলাতে


১০৪৬ তুমি নিত্য সত্য নিজাধীন


১০৪৭ নীরবে চলিয়া যাই (আমি)


১০৪৮ কে গো গান গেয়ে যায়


১০৪৯ আমি তোমার সন্ধানে অদ্রি-কাননে


১০৫০ আমি তোমায় ভুলে’ আঁধার তলে


১০৫১ ওগো সুন্দর তুমি এসেছিলে


১০৫২ তাহারই মধুর ভাবে


১০৫৩ আলোর দেশের পরী এসেছে


১০৫৪ তব মানস মাধবীকুঞ্জে


১০৫৫ তোমায় ছেড়ে’ কোথায় যাই বল


১০৫৬ (তোমারে) চিনেও চেনা দায়


১০৫৭ ভালবাসি তোমায় আমি


১০৫৮ মানস কমলে থাকো চিরতরে


১০৫৯ এসো এসো জ্যোতির ছটায় তুমি এসো এসো


১০৬০ অন্ধকারের বক্ষ ভেদিয়া


১০৬১ তোমারেই ভালোবাসিয়াই ধরা


১০৬২ প্রাণের ছন্দ অলকানন্দ


১০৬৩ তুমি যদি নাহি এলে


১০৬৪ মোর নয়নে


১০৬৫ আঁধার সাগর পারে কে গো এলে


১০৬৬ বিরহী হিয়া আকাশে চাহিয়া


১০৬৭ (তুমি) কালাতীত দেশাতীত গো


১০৬৮ তোমা’ তরে নিশি জাগা


১০৬৯ তোমা’ তরে মোর কত ব্যথা


১০৭০ পথ ‘পরে মোর দাঁড়ায়ে’ পড়িলে


১০৭১ ভক্তবৎসল প্রভু তুমি


১০৭২ কার তরে তুমি বসে’ বসে’ কাঁদ


১০৭৩ সবার হৃদয়ে তোমার আসন


১০৭৪ এলেই যখন কেন চলে’ গেলে


১০৭৫ বলে’ যাও মোর ‘পরে কেন অভিমান


১০৭৬ তোমাকে কাছে পেয়েছি এবার


১০৭৭ উত্তাল সিন্ধু উৎক্রমি’


১০৭৮ তোমারই প্রীতি তোমারই গীতি


১০৭৯ আঁধার নিশীথে ধ্রুবতারা (তুমি)


১০৮০ আলোকের এই যাত্রাপথে


১০৮১ জ্যোৎস্না নিশীথে নীরবে নিভৃতে


১০৮২ বনে উপবনে খুঁজিয়া খুঁজিয়া


১০৮৩ তোমার তরে বসে’ বসে’


১০৮৪ বলেছিলে মোরে আসবে ফিরে’


১০৮৫ দেখা দাও দেখা দাও


১০৮৬ গান গেয়ে যাই তোমাকে শোণাই


১০৮৭ তোমার বেদীর তলে বসেছিনু দীপ জ্বেলে’


১০৮৮ মননিকুঞ্জে হরষপুঞ্জে


১০৮৯ আলোকের সৌররথে


১০৯০ মানুষ সবাই আপন


১০৯১ মনের কোণে কিসের আলো


১০৯২ আলোর ঝর্ণাধারা নেবে’ এসেছে


১০৯৩ তুমি এসেছো আলোর পথে নব প্রভাতে


১০৯৪ মনেতে ভোমরা কেন বা এল


১০৯৫ যে আমাকে যাহাই বলুক


১০৯৬ এসো এসো মোর মরু হিয়াতে (তুমি)


১০৯৭ ঘরের আঁধার প্রদীপ জ্বেলে’


১০৯৮ তুমি অলকাদ্যুতি আমি দীপশিখা


১০৯৯ দূর আকাশের নীহারিকা


১১০০ মনের মাঝে দোলা দিয়ে


১১০১ অশোকে পলাশে দূর্বা ঘাসে


১১০২ জীবনে এসো প্রভু


১১০৩ ধর্ম আমারই সাথী


১১০৪ কেঁদে কেঁদে’ তব কবরী-বন্ধ


১১০৫ তুমি আছো প্রভু জগত আছে


১১০৬ প্রজাপতি পাখনা মেলে’


১১০৭ তন্দ্রাহত আঁখিপল্লবে


১১০৮ এসো এসো (তুমি)


১১০৯ তুমি তুমি তুমি


১১১০ নন্দনমধুনিষ্যন্দ


১১১১ সবার সঙ্গে তুমি আছো


১১১২ হৃদয় ভরিয়া এলে


১১১৩ বিশ্বের চক্রনাভি তুমি


১১১৪ আকাশের তারা বলে একমাত্র


১১১৫ আলোকের ওই ঝর্ণাধারায়


১১১৬ আকাশে আজ তারার মালা


১১১৭ আলো-আঁধারে হায় দিন কেটে যায়


১১১৮ ভ্রমর এলো ঘরের মাঝে


১১১৯ এই ভালবাসা-ভরা মধু সন্ধ্যায়


১১২০ শারদ নিশীথে শেফালী সুধাতে


১১২১ জ্যোতিসমুদ্রে এক অণু তব (আমি)


১১২২ বরষার রাতে কেতকীসুবাসে মাতে


১১২৩ আলোকে তোমার লীলা


১১২৪ তুমি আমায় ভুলে’ গেছো


১১২৫ বিশ্ব মাঝে তোমায় খুঁজে’


১১২৬ বলেছিলে মোরে গান শোণাবে



১১২৭ আলোকে আলোকে আলোকে তুমি এসেছো


১১২৮ আলোতে ছায়াতে দুঃখ-সুখেতে


১১২৯ বসন্তে অণু অণুতে


১১৩০ যার অস্মিতা শেষ হয়ে গেছে


১১৩১ তুমি আছো তাই মোরা আছি (প্রভু)


১১৩২ এলে আলোর বানে


১১৩৩ স্নিগ্ধ সমীরে এসে’


১১৩৪ আমি তোমার কথা ভাবি দিবারাতি


১১৩৫ তোমারে দেখেছি শত রূপে


১১৩৬ গানে এসো প্রাণে (তুমি)


১১৩৭ (আমি) ভালোবেসে তোমায় পাবো


১১৩৮ শত বাধা উৎক্রমি’ তুমি এসো


১১৩৯ তোমার সাথে কোন্‌ অতীতে


১১৪০ তুমি ধ্রুব ধারণার সারথি


১১৪১ বন পাহাড়ের আড়াল দিয়ে


১১৪২ অন্ধকারে হিমে কুয়াশায় নাহি থেমে


১১৪৩ দেশ-কালাতীত প্রীতিতে নিহিত


১১৪৪ তুমি আমার আশার আলো


১১৪৫ তোমার পরশে প্রাণের প্রদীপ


১১৪৬ তুমি এসেছো ভালোবেসেছো


১১৪৭ আমি ভুলে’ গেছি সেই দিন ক্ষণ


১১৪৮ তুমি অণু অণুতে আছো


১১৪৯ তুমি যদি না আসো প্রিয়


১১৫০ ধরা দিয়েছিলে মনের মুকুরে


১১৫১ এই স্বপ্নসুধা-ভরা ধরা


১১৫২ মনেরই মাঝারে গোপনে অগোচরে


১১৫৩ আজি মোর বসন্ত ঝরিয়া যায় অবহেলায়


১১৫৪ তুমি এসেছিলে আলো জ্বেলেছিলে


১১৫৫ জ্যোৎস্না নিশীথে নীরবে নিভৃতে


১১৫৬ কে গো তুমি এলে মনেরই মাঝে


১১৫৭ কে গো এলে সুধা-ঝরা


১১৫৮ গানে গানে এসো


১১৫৯ রঙের মেলায় এসেছিলে তুমি


১১৬০ ভাবাতীত তুমি ভাবলোকে এসো


১১৬১ আমি তোমাকে ভালবাসিয়াছি


১১৬২ প্রাণের দেবতা কাছে এসো


১১৬৩ মনেরই গহনে যে এসেছে নিজে থেকে


১১৬৪ আঁধারেরই যবনিকা ঠেলে’


১১৬৫ গহন অন্ধকারে বার্তাবহ (তুমি)


১১৬৬ নূতনেরই আলো এসেছে (আজি)


১১৬৭ আমার চলার পথে আঁধার রাতে


১১৬৮ আমার এ গান দিবসে নিশীথে


১১৬৯ আমি ছিনু বসে’ বালুকাবেলায়


১১৭০ পলাশ বনে তোমার সনে


১১৭১ পত্রে পুষ্পে তুমি আছো


১১৭২ দরশন লাগি’ জাগে আঁখি


১১৭৩ জ্যোৎস্না-ভরা রঙিন রাতে


১১৭৪ অলকা লোক হতে এ মধুবনেতে


১১৭৫ সকল আশা ভরসা তুমি


১১৭৬ প্রীতির ধারায় (এসো)


১১৭৭ আলোর দেবতা এসেছে


১১৭৮ আমি তোমারেই ভালবাসিয়াছি


১১৭৯ মহাবিশ্বেরই ত্রাতা


১১৮০ তোমার মনের কর্ণিকাতে


১১৮১ তোমার পুলক দ্যুলোকের পানে ধায়


১১৮২ (তুমি) উত্তাল সিন্ধুতে নাচো


১১৮৩ এসো গো দূরের বঁধু হিয়ার মধু


১১৮৪ চাও চাও ওগো প্রিয়


১১৮৫ তব করুণার কণা


১১৮৬ তুমি এসেছো কৃপা করেছো


১১৮৭ তোমারই প্রীতিতে গড়া


১১৮৮ নয়নের ঘুম কেড়ে’ নিয়ে


১১৮৯ তুমি যে প্রাণের প্রিয়তম মম


১১৯০ মানুষ মানুষ হারায়ে হুঁশ


১১৯১ কোন্‌ সুদূরের সুর আজি বাজলো বাজলো


১১৯২ তোমার আসার পথ চেয়ে


১১৯৩ নীরব চরণে এসেছিলে গোপনে


১১৯৪ থাকো তুমি থাকিয়া যাও


১১৯৫ বিশ্ব ভুবন ঘুরিয়া ঘুরিয়া


১১৯৬ সোণালী রথের ওগো সারথি


১১৯৭ তোমারই ভাবনা ভাবিতে ভাবিতে


১১৯৮ সুদূরের সখা কাছে এসো


১১৯৯ নিক্কণে নিক্কণে শিঞ্জিত চরণে


১২০০ কোন্‌ শলাকায় প্রদীপ জ্বেলে’


১২০১ এলে এলে এলে আঁধার হৃদয়ে জ্বালালে


১২০২ আমার সেদিন হারিয়ে গেছে


১২০৩ মোর কণ্ঠে যে সামর্থ্য দিয়েছ


১২০৪ তুমি এলে আলো জ্বালালে


১২০৫ আমি তোমাকেই ভালবেসেছি


১২০৬ কোন সে অজানা প্রভাতে


১২০৭ আলোকেরই বান ডেকেছে


১২০৮ তোমার নামের রূপের ভেলায়


১২০৯ তোমার নামের রূপের মেলায়


১২১০ তুমি এলে তমঃ সরালে আলো জ্বালালে


১২১১ অবেলায় ডাক দিয়ে কে গো চলে’ যায়


১২১২ আলোকের পথ ধরে’ তুমি এসেছো


১২১৩ নয়নে থাকো প্রভু থাকো অবিরাম


১২১৪ আমি তোমায় ভালবাসি তোমাকে চাই


১২১৫ এসেছো এসেছো তুমি এসেছো


১২১৬ বুঝি বা আমার দীর্ঘ যামিনী


১২১৭ সোণা-ঝরা এ ঊষায় (আজি)


১২১৮ তোমার তরে মালতী মালা গাঁথা


১২১৯ কোন্‌ স্বর্গের সুরভি এনেছ


১২২০ স্মৃতি বুকে নিয়ে বসে’ আছি


১২২১ আগুনেরই পরশ নিয়ে


১২২২ আসিয়াছে সেদিন ওগো আশ্রয়হীন


১২২৩ মনের বনে চোর এসেছে


১২২৪ মনের মাঝে লুকিয়ে আছো


১২২৫ (আমি) তোমায় ভালবেসেছিলুম


১২২৬ বিশ্বের প্রাণ ভরিয়ে


১২২৭ জানা-অজানার শেষ পারাবারে


১২২৮ তোমার আমার মাঝে রেখো না কোন প্রাচীর


১২২৯ আমি ভালোবাসিয়াছি দূরের তারাকে


১২৩০ ভালবাসি তোমায় আমি


১২৩১ চাঁদে মেঘেতে খেলা


১২৩২ আমার ভুবন কালো হয়ে আছে


১২৩৩ আলো ঝরিয়ে মধু ক্ষরিয়ে


১২৩৪ কাছে এসো দূরে থেকো না (তুমি)


১২৩৫ তুমি বলো আমারে বলো আমারে


১২৩৬ সকল জীবনের উষ্ণতা তুমি


১২৩৭ নয়নেরই তারা তুমি


১২৩৮ তুমি যদি না এলে প্রিয়


১২৩৯ জীবনে তোমার আলো


১২৪০ (তুমি কি) দূর আকাশের তারা


১২৪১ ডেকে’ ডেকে’ আমার দিন ফুরাল


১২৪২ ঝঞ্ঝায় তুমি এসেছ


১২৪৩ বিহগের দল ধ্বনিয়া উঠেছে


১২৪৪ এই প্রত্যূষে মুক্ত আকাশে


১২৪৫ দিব্য দ্যুতিতে প্রজ্ঞারই রথে


১২৪৬ নয়নে লুকিয়ে আছো


১২৪৭ নয়নে বরষা এলো


১২৪৮ শত বাধার প্রাচীর ভেঙ্গে’ এগিয়ে যাব


১২৪৯ এই ভুলে’ যাওয়া ব্রজভূমিতে


১২৫০ এই ফাগুনে সঙ্গোপনে


১২৫১ ব্রজের কানু আবার কি রে


১২৫২ ব্রজরাজনন্দন 


১২৫৩ ছিল সে আঁখির তারা


১২৫৪ এসেছি এক নোতুন দেশে


১২৫৫ ভাবকে দিয়েছ তুমি ভাষা


১২৫৬ মমতাজ়ে স্মরণীয় করিতে


১২৫৭ এসো প্রভু নৃত্যে রাগে তালে (তুমি)


১২৫৮ তোমায় ঘিরে’ ছন্দে সুরে


১২৫৯ যায় তরুর ছায়া আসে মরুর মায়া


১২৬০ মরুর জাহাজ চলে মারব দ্বীপে


১২৬১ মনের গহনে নীরব চরণে


১২৬২ প্রাণের পরশ গানের হরষ


১২৬৩ তোমারে হারায়েছি (আমি)


১২৬৪ তোমাকে যারা ভুলে’ থাকে তারা


১২৬৫ আমার আহ্বানে সাড়া দিয়েছ (তুমি)


১২৬৬ জ্যোতিতে উজ্জ্বল প্রীতি-সমুজ্জ্বল


১২৬৭ আলোর রথ যায়


১২৬৮ নয়নে মিশে’ থাকো প্রিয়তমা (মোর)


১২৬৯ আমার কৃষ্ণ কোথায় বল্‌ রে


১২৭০ তব পথ চেয়ে


১২৭১ তোমায় আমি ভালো বেসেছি


১২৭২ আমার গোপন কথা জেনে’ নিয়েছে


১২৭৩ আমায় নিয়ে এ কী খেলা


১২৭৪ এসেছিলে প্রভু সুরের মায়ায়


১২৭৫ তোমার গানে তোমার সুরে


১২৭৬ কী বা হারাইয়া গিয়াছে তোমার


১২৭৭ ভালো যদি না বাসিতে


১২৭৮ কেউ আলোকেই মিশে’ যায়


১২৭৯ তোমারে সতত নন্দিত করি’


১২৮০ অক্ষয় তুমি অব্যয় তুমি


১২৮১ তোমার সঙ্গে আমার প্রভু


১২৮২ তোমার ফেলে-আসা চরণধূলি


১২৮৩ গানে তোমারে পাইয়াছি প্রিয়


১২৮৪ তুমি এসেছিলে ফাগুনের দিনে


১২৮৫ কুয়াশার কালো মুছে দিয়ে


১২৮৬ ধর্মে তোমায় ধরেছি


১২৮৭ ভালো বেসেছিলে


১২৮৮ (তুমি) ফিরে’ এসো ফিরে’ এসো তুমি ফিরে’ এসো


১২৮৯ প্রাণের পরশ দিয়ে


১২৯০ অনুপম রূপে সুস্মিত নীপে


১২৯১ কেন আঁখি ছলছল জল ভরে’


১২৯২ আকাশ ঘিরিয়া আছে ক্ষুদ্র ধরাকে


১২৯৩ তোমারে স্বাগত জানাই


১২৯৪ আমি তোমায় ভালবেসেছি


১২৯৫ ফুলের বনে একলা এলে


১২৯৬ ফাগুনেরই পরশ দিয়ে


১২৯৭ পথের উপল দুই পায়ে দলে’


১২৯৮ আমি তোমাকেই ভালবেসেছি


১২৯৯ আছো ছন্দে আছো তানে


১৩০০ তোমারে জানাই প্রণাম


১৩০১ সে এক মধুর স্মৃতি


১৩০২ পথ ভুলে’ অজানা পথিক


১৩০৩ এ কি উচ্ছল জ্যোতি-সরিতা


১৩০৪ দিন চলে’ যায় বলাকা পাখায়


১৩০৫ মধুমাখা সুরে বেণুকা পুরে


১৩০৬ চিত্ত আমার আবেগ আমার


১৩০৭ কাজ করে’ যেতে এসেছি ধরাতে


১৩০৮ নূতন দিনের নূতন সূর্য্য


১৩০৯ মেঘেরা কেন নীচে নেবে’ আসে


১৩১০ তন্দ্রা ভেঙ্গে’ গেছে


১৩১১ মহাকাশ পেতে চায় মাটির পরশ


১৩১২ আলোকে এসো ভূলোকে


১৩১৩ নয়নাভিরাম প্রভু


১৩১৪ এসো নামে এসো ধ্যানে (তুমি)


১৩১৫ (তুমি) নয়ন মাঝারে রয়েছো


১৩১৬ কার তরে তুমি বসে’ বসে’ কাঁদো


১৩১৭ সৌরকরোজ্জ্বল স্বর্ণিম সুপ্রভাতে


১৩১৮ মোর মনের গহনে


১৩১৯ আমি পথ ভুলে’ চলে’ গিয়েছিনু


১৩২০ আমি গোলাপের কুঁড়ি আড়চোখে হেরি


১৩২১ তুমি এসেছো ভরা দু’কূলে


১৩২২ তোমার আসার পথ চেয়ে থাকি


১৩২৩ ভালো বাসিয়া চলে’ গেলে


১৩২৪ তোমার মহাবিশ্বে প্রভু


১৩২৫ তমসার নিশা দূরে সরে’ গেছে


১৩২৬ একলা আমায় ফেলে’


১৩২৭ তুমি না বলে’ এসেছিলে


১৩২৮ আমি ভুল পথে চলে’ এসেছি


১৩২৯ তিমিরাবৃত অমারাত্রির


১৩৩০ দেবতাত্মা হিমালয় (তুমি)


১৩৩১ মেঘে পাহাড়ে খেলা


১৩৩২ ঝর্ণা তরতরিয়ে নাচে


১৩৩৩ সু-উচ্চশির বনস্পতি (তুমি)


১৩৩৪ (তুমি) কোন্‌ সুদূরের বলাকা


১৩৩৫ অভ্রংলেহী হিমাচল গিরি


১৩৩৬ অপ্সরাদের দেশে এসে’


১৩৩৭ এই বিহান বেলায় আজ একেলায়


১৩৩৮ আমি পথের হদিশ পাই নি


১৩৩৯ আলো আমার আলো তোমার


১৩৪০ ইট-পাথরের স্তূপে


১৩৪১ আমি চাই না এই সভ্যতা


১৩৪২ নূতনের আলো এল (আজি)


১৩৪৩ বন পাহাড়ের রঙের মায়ায়


১৩৪৪ (আমি) তোমার তরে কিছু করি নি আমায়


১৩৪৫ (আমায়) মরুর মায়া ডাকে


১৩৪৬ স্নিগ্ধ সজল মেঘকজ্জল তিথিতে


১৩৪৭ (আজি) কেন এলে আমার মনে


১৩৪৮ তোমার পথ ধরে’ আমি চলি


১৩৪৯ প্রভাতের আলো কার তরে ঢাল


১৩৫০ এ সংসারে চাই তোমারে


১৩৫১ অরুণ রাগে নব অনুরাগে


১৩৫২ বেদরদী কোন সুদূরে যাও


১৩৫৩ রূপাতীত প্রভু রূপে এসো (তুমি)


১৩৫৪ ভালবাসিয়াছো আমায় (তুমি)


১৩৫৫ কৃপাকণিকা চেয়েছিলুম (আমি)


১৩৫৬ আমি তোমায় ভালোবেসেছিলুম


১৩৫৭ ভাসিয়ে দিলুম গানের ভেলা


১৩৫৮ মধুরিমা-মাখা নয়নে


১৩৫৯ তোমায় ভালো বেসেছিনু


১৩৬০ মধুর তোমার পরশের তরে


১৩৬১ তনিমার মধুরিমাতে


১৩৬২ মনের রাজা মনে এসো (তুমি)


১৩৬৩ বৃহৎ তুমি ক্ষুদ্র আমি


১৩৬৪ আঁধার সাগর পার হয়ে এলে


১৩৬৫ সবার মনের মননে রয়েছ


১৩৬৬ জ্যোৎস্না রাতে নীলোদধিস্রোতে


১৩৬৭ আম্রমুকুলে কিংশুকফুলে


১৩৬৮ ফুলেরা ফুটল কেন উপবনে


১৩৬৯ এসো তুমি ফুলের সাজে


১৩৭০ নয়নেরই অঞ্জন মানসরঞ্জন


১৩৭১ অলখ নিরঞ্জন প্রভু (তুমি)


১৩৭২ যে আগুন জ্বালিয়ে দিলে প্রভু


১৩৭৩ ফুলের সুবাসে তুমি কে গো এলে


১৩৭৪ তোমাকে পাবার আশে


১৩৭৫ শরণাগত স্মরণে ক্লান্ত


১৩৭৬ আমারই তরে কত ক্লেশ করে’


১৩৭৭ এসো এসো মম মনবিতানে


১৩৭৮ পথের ভুলে এলে চলে’


১৩৭৯ আমি তোমার কৃপায় এসেছি


১৩৮০ কেন গো ভালবেসে’ কাছে এসে’


১৩৮১ বিপদভঞ্জন দুঃখমোচন


১৩৮২ তোমায় আমি ভালোবাসি


১৩৮৩ সবার ভালবাসা পেয়েছ (তুমি)


১৩৮৪ (তুমি) পথের ধূলোয় নেবেছিলে


১৩৮৫ অরুণের আলো গবাক্ষপথে


১৩৮৬ বিশ্বেশ্বর জ্যোতিরীশ্বর


১৩৮৭ এসো তুমি প্রিয়তম


১৩৮৮ প্রভু তুমি আমায় কত কী যে দিলে


১৩৮৯ আলোকের বান বহায়ে দিয়েছ


১৩৯০ তোমার পথে চলি আমি


১৩৯১ তোমার কথা ভেবে’ দিন কেটে’ যায়


১৩৯২ আসবে বলে’


১৩৯৩ সবার আশা ভালবাসা


১৩৯৪ অচিন পরী মধুবনে


১৩৯৫ তুমি যে আমার প্রাণের আধার


১৩৯৬ তোমায় আমি ভালোবাসি প্রভু


১৩৯৭ আমার কথা শোণ না তুমি 


১৩৯৮ ফাগুনের আগুন-লাগানো


১৩৯৯ নন্দনমধু মন্থন করি’


১৪০০ নিজের ছন্দ হারিয়ে ফেলেছি


১৪০১ এ কি আকর্ষণ স্মরণে


১৪০২ কে গায় মধু-ঝরা বরষায়


১৪০৩ তোমারই চরণে বরণে বরণে


১৪০৪ প্রীতি-ভরা সেই গীতি অববাহিকার


১৪০৫ গানের পরশ দাও প্রাণের ‘পরে


১৪০৬ বকুল তরুছায়ে কুসুম বিছায়ে


১৪০৭ ভালোবেসেছিলুম ভুলে’ যেও


১৪০৮ কণ্টক-পথ ধরে’ ক্লেশ বরণ করে’


১৪০৯ তুমি এসো মম জীবনের মূলে প্রিয়তম


১৪১০ বর্ষারাতে তোমায় আমি পেয়েছিলুম পাশে


১৪১১ আলো-ঝরা শরৎ সাঁঝে


১৪১২ প্রিয়তম প্রভু আমার


১৪১৩ দখিনা পবনে চিত্তবনে


১৪১৪ আলো-ঝরা ঝরণা ধারায়


১৪১৫ তোমারই তরে ফুলসাজে সাজা


১৪১৬ কথা দিয়ে কেন নাহি এলে


১৪১৭ তোমার মমত্ব তোমার মহত্ত্ব


১৪১৮ আদিদেব পশুপতি নাও মম প্রণতি


১৪১৯ (ও সে) মধুরতা-মাখা শ্যামরায়


১৪২০ আমি তোমায় ভালবেসেছি


১৪২১ আমার সকল দুঃখের মাঝে


১৪২২ আয়ত আঁখি জলে ছলছল


১৪২৩ তোমার আমার ভালবাসা


১৪২৪ কে গো অজানা অপ্সরা


১৪২৫ যদি এসে’ গেলে প্রিয় এই অবেলায়


১৪২৬ তন্দ্রা-জড়িমা ছিল আঁখিপাতে


১৪২৭ তোমার নৃত্যে সবে নেচে’ চলে


১৪২৮ তন্দ্রা ভুলিয়া গেছি


১৪২৯ ফুলপরাগে অনুরাগে


১৪৩০ অঞ্জন এঁকে’ চোখে চাহিয়া নির্নিমেষে


১৪৩১ এসো নীরব চরণে


১৪৩২ অঞ্জন এঁকে’ দাও আঁখির ‘পরে


১৪৩৩ ছন্দে তালে এলে


১৪৩৪ আসিবে বলিয়া গেলে


১৪৩৫ না বলে’ না কয়ে


১৪৩৬ জীবনের মাদকতায়


১৪৩৭ বরের বেশে এসো তুমি


১৪৩৮ বসন্তে ফুলবনে কে এলে


১৪৩৯ প্রভু আমার প্রিয় আমার


১৪৪০ চাঁদ তুমি আমার পানে


১৪৪১ তোমার চরণধ্বনির আশে


১৪৪২ আমার এ ফুলবনে


১৪৪৩ অপ্সরা এসেছে


১৪৪৪ আলোর ধারা গালে ঘেঁসে বলে গেল আমায়


১৪৪৫ জলে ভরা আঁখি


১৪৪৬ আঁখিতে ছিল যে বারি


১৪৪৭ ফাগুন কেন কেদে’ চলে’ যায়


১৪৪৮ ওগো রাজার রাজা


১৪৪৯ আমি তোমায় ভালবেসেছি


১৪৫০ বসে’ বসে’ কাল গুণে’ যাই


১৪৫১ তুমি কবে আসিবে


১৪৫২ অজানা পথিক কে তুমি (বল)


১৪৫৩ আমি তোমায় ভালবেসেছি


১৪৫৪ কত কাল তব পথ চেয়ে রব


১৪৫৫ এক স্বপ্নের দেশে আমি


১৪৫৬ আমি তোমাকে নিয়ে আছি গো


১৪৫৭ আমার যত মলিনতা


১৪৫৮ তুমি মোর আশারই আলোক


১৪৫৯ তব পথ চেয়ে প্রিয়


১৪৬০ যারা তোমায় ভালবাসে


১৪৬১ আমারে ভুলিয়া গেছ


১৪৬২ ঘরে এসো ঘরে এসো


১৪৬৩ তোমায় আমি চেয়েছিলুম


১৪৬৪ বসন্তে মোর ফুলবনে প্রিয়


১৪৬৫ ভুলিয়া গেছ কি সেদিনের কথা


১৪৬৬ তোমার লাগিয়া রচিয়া রেখেছি


১৪৬৭ তুমি আমার ভালো চেয়েছিলে


১৪৬৮ স্বপনে দেখেছি তুমি আসিয়াছ


১৪৬৯ কোন্‌ অজানা দেশের প্রিয় পরিবেশে


১৪৭০ ঘরের আঁধার আলো করে'


১৪৭১ ছিলুম স্বপনে তোমারই ধ্যানে


১৪৭২ বন-পাহাড়ের দেশে


১৪৭৩ তুমি পর্বত আমি উপলকণা


১৪৭৪ কত দিনে আঁখির জলে


১৪৭৫ ফুলের বনে ভোমরা এল গুনগুনিয়ে


১৪৭৬ স্বপ্নে রচা অলকাতে


১৪৭৭ ফুলের সাজে তুমি এলে


১৪৭৮ ওগো প্রিয় কেন বসে' বালুকাবেলার 'পরে


১৪৭৯ রূপের পসরায় তুমি এসেছ


১৪৮০ এলে ক্লেশ করে' এত দিন পরে


১৪৮১ তোমারে চেয়েছি


১৪৮২ খদ্যোৎ মাঝে তুমি চাঁদের আলো


১৪৮৩ মুক্ত বিহগ ভেসে' যায়


১৪৮৪ তুমি একা ছিলে কোটি কোটি হলে


১৪৮৫ এসো এসো এসো


১৪৮৬ এ কী মধুরতা পবনে


১৪৮৭ ফুলেরই রাজা এসেছ


১৪৮৮ তোমারে ভালবাসে যে জন


১৪৮৯ তুমি তমসার সাগরে জ্যোতি আনিলে


১৪৯০ আলোর ধারা নেচে' চলে


১৪৯১ তোমায় খুঁজে' বেড়িয়েছি


১৪৯২ রক্তিম প্রাতে আলো-ঝরা হাতে


১৪৯৩ রূপে রাগে এলে ভুবন ভরালে


১৪৯৪ সুরভিত পবনে মনেরই মধুবনে


১৪৯৫ তোমায় ভালবাসি


১৪৯৬ তুমি মনকে কেড়ে' নিতে জান গো


১৪৯৭ তুমি কি ভুলে' গেছ আমায় প্রভু


১৪৯৮ কেন অসময়ে এলে এমন ভাবে


১৪৯৯ তুমি এসেছ দ্বার ভেঙ্গেছ


১৫০০ নিবিড় নিশীথ টুটি'